1. admin@sonerbanglanews24.com : admin :
বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নতুন বছরে বাংলাদেশ অমিত সম্ভাবনার পথে এগিয়ে যাবে অসুস্থ হয়ে বিএসএমএমইউ(পিজি) হাসপাতালে ভর্তি ওবায়দুল কাদের, দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা চৌগাছায় ৮৮লক্ষ টাকা ব্যয়ে কলেজ ভবনের শুভ উদ্ভোধন কক্সবাজারে বিমানের ধাক্কায় ২ গরুর মৃত্যু, ঢাকায় নিরাপদ অবতরণ ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম বহিষ্কার ঝিকরগাছা উপজেলায় নৌকা প্রতিকে নির্বাচিত চেয়ারম্যানদের সম্বর্ধনা মিরপুর বিভাগে বিশেষ কৃতিত্বের জন্য শ্রেষ্ঠ থানা হিসাবে পল্লবী থানা পুরষ্কৃত বিএসপিইউএ এর ওয়েবিনার “কিভাবে হাই ইমপ্যাক্ট গবেষণা প্রকাশনা প্রকাশ করা যায়: কিছু প্রস্তাবনা” প্রগতি লাইফ ইন্সুরেন্স এর মেট্রো প্রকল্পের ম্যানেজারদের ট্রেনিং এবং সম্মেলন অনুষ্ঠিত ২য় ধাপে ৮৪৮টি ইউপি ভোট ১১ই নভেম্বর, ভোট হবে ইভিএম এর মাধ্যমে

শেষমেষ বার্সাকে বিদায় জানালেন মেসি, অশ্রুসিক্ত বিদায়

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : সোমবার, ৯ আগস্ট, ২০২১
  • ১০২ বার পঠিত

কান্নার কারণে ঠিকমত কথা বলতে পারছিলেন না। বারবার চোখের পানি মুছতে দেখা যাচ্ছে তাকে। তবুও বার্সেলোনা থেকে বিদায় নেয়ার মুহূর্তে নিজের কিছু বলা বলে গেলেন মেসি। সবই বার্সাকে ঘিরে। সবকিছু উজাড় করে দিয়ে হলেও চেয়েছিলেন থাকতে। এমনকি ৫০ ভাগ পারিশ্রমিক কমিয়ে দেয়ার প্রস্তাবও গ্রহণ করেছিলেন তিনি।

তবুও স্প্যানিশ লা লিগার নতুন বিধি নিষেধ এবং কিছু কাঠামোগত সমস্যার কারণে মেসিকে আর শেষ পর্যন্ত রাখতে পারলো না বার্সেলোনা। গত বৃহস্পতিবার বার্সার পক্ষ থেকে এই ঘোষণা আসার পর আজ আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বার্সাকে বিদায় জানালেন মেসি।

ন্যু ক্যাম্পের সংবাদ সম্মেলন কক্ষে থরে থরে সাজানো হয়েছিল বার্সায় জেতা মেসির সবগুলো ট্রফি। তার পাশেই সংবাদ সম্মেলন মঞ্চে উঠলেন তিনি। সেখানেই বিদায় বেলায় বলা কথাগুলো জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

‘এটা সত্যিই খুব কঠিন (সিদ্ধান্ত)। আমি এর জন্য মোটেও প্রস্তুত ছিলাম না। গত বছর আমি নিজেই চেয়েছিলাম বার্সেলোনা ছেড়ে যেতে। তখন একটা যুক্তি কাজ করছিল। কিন্তু গত এক বছরে আমি এখানে ছিলাম। আমার পরিবার এবং আমি নিজেও চেয়েছিলাম এখানে থাকতে। এটা তো আমার বাড়ি। এখানেই থাকতে চেয়েছি আমি।’

‘অথচ আজ আমাকে গুডবাই বলতে হচ্ছে। খুব কম, মাত্র ১৩ বছর বয়সে আমি এখানে এসেছি। ২১ বছর পর আমি এখান থেকে বিদায় নিচ্ছি আমার স্ত্রী এবং তিন কাতালান-আর্জেন্টাইন সন্তানসহ। আমাকে এই শহর ছেড়ে যেতে হচ্ছে, অথচ এটা আমাদের নিজেদের বাড়ি। এখানকার সব কিছুর জন্যই আমি গর্বিত। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমার সতীর্থ এবং যারা আমার আশ-পাশে ছিলেন সবার প্রতি।’

‘এই ক্লাবে যেদিন প্রথম এসেছিলাম, সেদিন থেকেই নিজেকে উজাড় করে দিয়েছি। সর্বোচ্চ দেয়ার চেষ্টা করেছি। অথচ, আমি কখনো ভাবতেই পারিনি যে এই ক্লাবকে একদিন গুডবাই বলতে হবে। কখনো এমন কিছু আমার চিন্তাতেও ছিল না। এখানে থাকার জন্য আমার পক্ষ থেকে যা করার সব কিছুই করেছি। তারাও (ক্লাব) এমন কিছু করেনি, যাতে আমার থাকতে সমস্যা হয়। সব সমস্যার মূলে হচ্ছে লা লিগার বিধি-নিষেধ।’

‘আমার সম্পর্কে অনেক কথাই এখন বলা হচ্ছে। তবে আমি আমার পক্ষ থেকে এটা ক্লিয়ার করে দিতে চাই যে, এখানে থাকার জন্য যা যা কিছু করা সম্ভব, আমি তার সবকিছুই করেছি। কারণ আমি থাকতে চেয়েছি। গতবছর আমি থাকতে চাইনি। ওটা বলেছিলামও। এ বছর থাকতে চেয়েছি, কিন্তু থাকতে পারছি না।’

‘আমার নতুন চুক্তির (বার্সার সঙ্গে) সব কিছুই ঠিক হয়ে গিয়েছিল। বার্সা এবং আমি সব কিছুতেই একমত হয়ে গিয়েছিলাম। আমি মনেপ্রাণে চেয়েছি থাকতে। যখন আমি ছুটি কাটিয়ে বাড়িতে (বার্সায়) ফিরে আসলাম, তখনও সব কিছু ঠিক ছিল। বার্সায় আমি থাকছি এবং নতুন চুক্তিও সম্পন্ন। কিন্তু একেবারে শেষ মুহূর্তে এসে লা লিগার নিয়ম-নীতির কারণে কিছুই হলো না। সব কিছু ভেস্তে গেলো।’

‘আমি এই ক্লাবকে (বার্সা) ভালবাসি। গত দেড় বছর খেলার মাঠে সমর্থকদের দেখতে না পারাটা ছিল আমাদের জন্য খুবই কঠিন। আমি কল্পনাও করতে পারছি না যে, এভাবে গুডবাই বলতে হবে। যদি চিন্তা করি যে, এই সংবাদ সম্মেলনটা ন্যু ক্যাম্পে হচ্ছে এবং সমর্থকরা আসার সুযোগ পেতো, তাহলে আমি ভরা স্টেডিয়ামে সবার সামনে গুডবাই’টা সঠিকভাবে বলতে পারতাম।’

‘তবে কোনো সন্দেহ নেই, আগামী কয়েক বছর পর আমি আবারও বার্সেলোনায় ফিরে আসবো। কারণ আমি আমার সন্তানদের সেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ সোনার বাংলা নিউজ ২৪
কারিগরি কালের ধারা ২৪