1. admin@sonerbanglanews24.com : admin :
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০৫:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায়দের পাশে দাড়ান- শিক্ষক সমিতির ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানেএমপি নাসির ভিজিএফ কার্ড সহ সকল ন্যায্য অধিকার জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছি-এমপি নাসির সাফল্যের ২০ বছরে দেশের অন্যতম বিপিও প্রতিষ্ঠান ফিফোটেক চুরামনকাঠির চুরি যাওয়া ৬ট্রাক কাঠ সীমাখালিতে উদ্ধার কথা সাহিত্যিক রেজা নুর এর ১৬তম কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন স্বাস্থ্যমন্ত্রী পুরষ্কার-২২ চৌগাছা ও ঝিকরগাছা উপজেলা যথাক্রমে ১ম ও ৭ম ভাষা শহীদদের প্রতি এমপি নাসির উদ্দীন এর শ্রদ্ধা নিবেদন ‘জয় বাংলা’ কে জাতীয় স্লোগান করার সিদ্ধান্ত মন্ত্রীসভার বৈঠকে বেজিয়াতলা ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় এর নতুন কমিটি গঠন সাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, নিজে সুস্থ্য থাকুন অন্যদের সুস্থ্য থাকতে সহযোগিতা করুন

এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর ও বদলে যাওয়া আধুনিক মাগুরা

আবিদ রহমান
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১
  • ১৪৪ বার পঠিত

দক্ষিণ বঙ্গের কর্মবীর গনমানুষের নেতা উন্নয়নের রূপকার আওয়ামীলীগ নেতা এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর এমপি। যার স্পর্শে আমূল বদলে গিয়েছে মাগুরা । মাগুরাকে গড়ে তুলেছেন আধুনিক রূপকথার নগরীতে। বিগত বছরে মাগুরার যত গ্লানি ও জরা ছিলো তা দূর করে গড়ে তুলছেন আধুনিক সভ্য মাগুরা । জ্ঞান-বিজ্ঞান, চিকিৎসা, খেলাধুলা, আইন-শৃঙ্খলা, সামাজিক সচেতনতাসহ আধুনিকতার সবকটি সূচককে অতিক্রম করে তার নেতৃত্বে খুব শীঘ্রই গড়ে উঠবে এক বিস্ময়কর আধুনিক নগর।

দেশাত্মবোধ আর জনসেবা যে ধ্যানজ্ঞান আর মেধা বুদ্ধির শুভ আলোর স্পর্শে তিনি মাগুরাকে স্বপ্ন সংকল্পে বিশ্বমানের করে গড়ে তুলতে কাজ শুরু করেন। সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদকসহ সকল অপরাধকে পদদলিত করে তিনি গণমানুষের এক অমর স্লোগান হয়ে ওঠেন। তার এই যুদ্ধ সংগ্রামের সাহসি পথে তৈরি হয় ষড়যন্ত্র। নানা প্রতিকূলতাকে সততা আর ভালোবাসার সজল বরষায় নির্মল আর স্বাচ্ছন্দ্যের ধারায় সার্বজনিন করে তোলেন এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর।

তিনি দীর্ঘদিনে পর রেল যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আধুনিকায়নের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন। কর্মসংস্থানের লক্ষে শহরতলীর এলাকায় গড়ে তোলেন মেরিন একাডেমি। মাগুরা চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়নে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে ৫০০ বেডে উন্নীত করেন। অন্যতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কলেজকে শিক্ষা ও অবকাঠামোগতভাবে উন্নয়ন ও শিক্ষার্থীদের আবাসিক সংকট দূরীকরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।।

দেশ ও বিদেশে সাধারণ নাগরিকদের সেবার মান উন্নয়নে মাগুরা শহরের এলাকায় গড়ে তোলেন নান্দনিক আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস। শিশুরা আনন্দময় সময় কাটাবার জন্য শহরের গড়ে তোলেন স্বপ্নের ইকো পার্ক। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে আরও গতি সম্পন্ন করার লক্ষে মাগুরার বিভিন্ন এলাকায় গড়ে তোলেন বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র। সেখান থেকে উৎপাদিত বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হয়ে সারাদেশকে আলোকিত করছে। মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য উন্নত আবাসিক ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন উপজেলায় নান্দনিক মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করেছেন। খেলাধুলার মান উন্নয়নে আধুনিক মানের বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান স্টেডিয়াম নির্মাণ করেছেন।

সন্ত্রাস, চাঁদাবাজে আচ্ছন্ন অনুন্নত মাগুরাকে তিনি টেনে তুলেছেন স্বমহিমায়। মাগুরা জেলা বাসিকে নিরাপত্তাহীনতা থেকে মুক্তি দিয়ে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দিয়েছেন তিনি। এখন বদলে যাওয়া মাগুরাকে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজের কোনো জায়গা নেই। ব্যবসায়ী খেটে খাওয়া মানুষসহ মা বোনেরা যে কোনো সময়ে নিরাপদে নিশ্চিন্তে শহরে চলাচল করতে পারে। তার পথচলা থেমে নেই।মাগুরা জেলাকে রুপান্তর করে উন্নয়নের শিখরে নিয়ে যাওয়ার কাজে হাত দিয়েছেন অক্লান্ত কর্মবীর আলহাজ্জ এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর।

এ দিকে মাগুরা বাসির জীবনের মান উন্নয়নে সময় উপযোগী প্রকল্পভিত্তিক কার্যক্রম বাস্তবায়নের মাধ্যমে আলোকিত করেছেন। দুর্গম ভাগ্যহত মানুষের মুখে ফুটেছে হাসি। কর্মসংস্থান জীবন যাপনের পথসহ নানা উপায়ে আজ মাগুরার মানুষ স্বচ্ছন্দ্যে শহরের সঙ্গে অনায়াসে যোগাযোগ করতে পারছে। ভূমিহীনদের স্থায়ীভাবে জমি বরাদ্দ, গৃহনির্মাণ, গবাদীপশু প্রদান, নগদ অর্থ সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন। কুপির আলোর সিমীত জীবনযাপন থেকে আজ মাগুরা বাসি ধন্য আলোর প্রভাতে উজ্জীবিত হয়েছে। ঘরে ঘরে সৌর বিদ্যুৎ ব্যবস্থার কারণে তাদের জীবনমানে এসেছে সাফলতা। আধার কাটিয়ে এখন তারা টেলিভিশন দেখছেন সারাদেশের খবরাখবর জানছেন, ছেলেমেয়েরা পাঠ্যপুস্তকে মনোনীবেশ করছে। এছাড়া মাগুরা বাসিকে আরও আধুনিক করার লক্ষে এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর নানা প্রকল্প গ্রহণ করেছেন।

বিবিধ উন্নয়নের পাশাপাশি দরিদ্র ও বঞ্চিত এবং নারী উন্নয়নে তিনি অসংখ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অভাবী মানুষকে প্রতিমাসেই নানা বিপর্যয়ে নগদ অর্থ, ঢেউটিন, সেলাই মেশিনসহ সাহায্য সহযোগিতা করে আসছেন। নারী নির্যাতন বন্ধে তিনি পুরো জেলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করায় আজ মাগুরার নারীরা সমর্যাদায় এগিয়ে যাচ্ছে। নারীর কর্মসংস্থানের উন্নয়নে এলজিইডিসহ বিভিন্ন বিভাগে কর্মসংস্থানের পথ তৈরিসহ নিম্নআয়ের নারীদের আর্থিক উন্নয়নে নানা প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। বিধবা ভাতা, মাতৃশিশু ভাতা, বয়স্ক ভাতাসহ দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করে আসছেন। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পসহ হতদরিদ্রদের জন্য স্থায়ী বাসস্থান প্রকল্পসহ উন্নয়নের নানা প্রকল্প গ্রহণ করে তিনি মাগুরাকে সমৃদ্ধ করে যাচ্ছেন।

গ্রামীণ উন্নয়নের পাশাপাশি মাগুরাকে শহরকে আধুনিক ও বাসযোগ্য করার লক্ষে সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজ নির্মূল করে মানুষের মধ্যে আস্থা ফিরিয়ে এনে রোড ডিভাইডার, বাইপাস সড়ক, মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য নির্মাণ। শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে যাত্রী ছাউনি নির্মাণ ও মাগুরা পৌরসভাকে আধুনিকায়ন করে সেবার মহাকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলেছেন। সদর উপজেলাকে গতি সম্পন্ন করে সেখানে একটি আধুনিক কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ।

এছাড়া সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন বিভিন্ন মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দির ও চার্চের উন্নয়নের মাধ্যমে। বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান যেমন- পবিত্র ঈদুল আযহা, দুর্গাপূজা, নামযজ্ঞ, বড়দিনের অনুষ্ঠানগুলোতে ধারাবাহিক যোগদানের মাধ্যমে ও সহায়তা প্রদান করে মাগুরার শান্তির অনন্য অধ্যায় সৃষ্টি করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ সোনার বাংলা নিউজ ২৪
কারিগরি কালের ধারা ২৪