1. admin@sonerbanglanews24.com : admin :
বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৭:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায়দের পাশে দাড়ান- শিক্ষক সমিতির ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানেএমপি নাসির ভিজিএফ কার্ড সহ সকল ন্যায্য অধিকার জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছি-এমপি নাসির সাফল্যের ২০ বছরে দেশের অন্যতম বিপিও প্রতিষ্ঠান ফিফোটেক চুরামনকাঠির চুরি যাওয়া ৬ট্রাক কাঠ সীমাখালিতে উদ্ধার কথা সাহিত্যিক রেজা নুর এর ১৬তম কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন স্বাস্থ্যমন্ত্রী পুরষ্কার-২২ চৌগাছা ও ঝিকরগাছা উপজেলা যথাক্রমে ১ম ও ৭ম ভাষা শহীদদের প্রতি এমপি নাসির উদ্দীন এর শ্রদ্ধা নিবেদন ‘জয় বাংলা’ কে জাতীয় স্লোগান করার সিদ্ধান্ত মন্ত্রীসভার বৈঠকে বেজিয়াতলা ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় এর নতুন কমিটি গঠন সাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, নিজে সুস্থ্য থাকুন অন্যদের সুস্থ্য থাকতে সহযোগিতা করুন

১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত নতুন ব্রিজে নৌ চলাচলে বিঘ্নিত, উপেক্ষিত বিআইডব্লিউটি এর অনুমোদন

যশোর প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১
  • ১৩৯ বার পঠিত

ঝিকরগাছা উপজেলার উপর দিয়ে প্রভাবিত কপোতাক্ষ নদের উপর সম্প্রতি ব্রিজ নির্মাণ করা হচ্ছে জায়কার অর্থায়নে। অলরেডি একটি লেনের কাজ শেষ হয়েছে। অন্য লেনের কাজ চলছে। কিন্তু নকশায় সেতুর উচ্চতা কম হয়েছে। পানি এখনই ব্রিজের বর্ডার ছুইছুই। যার দরুন নৌ-যান পারাপারের কোন সুযোগ থাকছে না। এ বিষয়ে ঝিকরগাছাবাসী অনেকদিন থেকে ক্ষোভ প্রকাশ করে আসছেন। গুরুত্বপূর্ণ এই নদে এপার থেকে ওপারে নৌকা নিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকছে না বললেই চলে।
অনেকেই বলছেন যশোর-বেনাপোল মহাসড়কের উপর এই সেতু নির্মাণের মাধ্যমে কপোতাক্ষ নদকে গলাটিপে হত্যা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে খুলনা বিভাগীয় প্রধান নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালনা তত্বাবধায়ক আশরাফ হোসেন সরেজমিনে এসে গেজেট বহির্ভূতভাবে নকঁশা পরিবর্তনসহ ব্রিজ নিচু করে নির্মাণ করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বিতর্ক উঠায় সেতুর উচ্চতা পরিমাপ করা হচ্ছে


উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম রেজা বলেন ” ব্রিজ নির্মাণ এর সময় এর ত্রুটির তুলে ধরে অনেক প্রতিবাদ করেছি, মানববন্ধন করেছি, কাজ হয়নি। এখন সেতু নদীর পানি ছুইছুই অবস্থা। তাহলে নৌ-যান চলবে কিভাবে? এককথায় এই ব্রিজ নির্মাণ করে প্রাচীনতম নদ কপোতাক্ষকে মেরে ফেলা হয়েছে। প্রতিনিয়ত এলাকাবাসী ফোন করছেন, দেখা হলে বলছেন ব্রিজটার কারনে নৌ চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে, দ্রুত ব্যবস্থা নিতে। আমরা বিআইডব্লিউটিএ এবং জাইকার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এর সাথে আবারও কথা বলার চেষ্টা করছি আশু সমস্যার সমাধানের জন্য।

উপজেলা প্রকৌশলী শ্যামল কুমার বসু বলেন “বন্যা বা প্রবল বর্ষায় সেতুর নিচ দিয়ে কোন কিছু চলাচল করতে পারবে না। ব্রিজের গার্ডার এর উচ্চতা কম হওয়ার কারনে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। নদ পুনঃখনন হলে হয়তো নিচ দিয়ে নৌ-যান চলাচল করতে পারবে।
উল্লেখ্য প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫০ কোটি টাকা। উক্ত ব্রিজটি নির্মাণ করছেন মনিকো এবং ডেনকো নামক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ সোনার বাংলা নিউজ ২৪
কারিগরি কালের ধারা ২৪